সময়ের মূল্য বুঝতন যাঁরা -PDF Download

মূল উৎস

শায়খ আবদুল ফাত্তাহ আবু গুদ্দাহ (রহঃ)

অনুবাদ

মাওলানা ইমরানুল হক মাদরাসাতুত তাকওয়া সরাইল, শহীদবাড়িয়া।

সম্পাদনা

হাবীবুর রহমান নদভী শিক্ষক, মাদরাসাতুল মাদীনাহ

আশরাফাবাদ, ঢাকা।

সময়ের মূল্য

‘সময়ের মূল্য দু’টিমাত্র শব্দের ছােট্ট এই শিরােনাম। কিন্তু তাতে রয়েছে। যেমন অর্থবহতা তেমনি বহুমাত্রিকতা। ফলে এ সম্পর্কিত আলােচনাতেও রয়েছে নানা বৈচিত্র ও বহুমুখিতা। একজন দার্শনিকের কাছে সময়ের মূল্য যেরূপ একজন ব্যবসায়ীর কাছে তা সেরূপ নয়। একইভাবে একজন কৃষক, একজন কারিগর, একজন সৈনিক, একজন রাজনীতিবিদ, একজন যুবক, একজন বৃদ্ধ প্রত্যেকের কাছেই সময়ের মূল্য এবং প্রকৃতি ভিন্ন। দ্রুপ একজন তালিবে ইলম ও আলিমের কাছে এর প্রকৃতি আরও ভিন্ন ও স্বতন্ত্র। এই গ্রন্থে আমি শুধু আলিম ও তালিবে ইলমের কাছে সময়ের মূল্য সম্পর্কে আলােচনা করেছি। আর আমি তা করেছি এই প্রত্যাশায় যে, এই গ্রন্থখানি আমাদের তরুণ প্রত্যয়ী তালিবে ইলমদের মনােবল উজ্জীবিত করবে। কেননা আজকাল তালিবে ইলমদের মনােবল নিস্তেজ হয়ে পড়েছে এবং অধ্যবসায়ীদের কাঙ্ক্ষিত লক্ষস্থল সুদূর পরাহত হয়ে পড়েছে। আর প্রকৃত জ্ঞানপিপাসু শিক্ষার্থীদের অস্তিত্ব বিরল হয়ে পড়েছে। ফলে মেধা ও প্রতিভার অপমৃত্যু ঘটেছে, অলসতা ও নিপ্রভতার প্রসার ঘটেছে। যার দরুন আহলে ইলমের কর্মকাণ্ডে দুর্বলতা ও পশ্চাদমুখিতা প্রকাশ পেতে শুরু করেছে।

সুতরাং আমি বলব, বান্দার প্রতি আল্লাহ তা’আলার নিঅ’মাত অগণিত, অফুরন্ত। তার আধিক্যের যথার্থ অনুভব ও সঠিক উপলব্ধি মানুষের সাধ্যাতীত বিষয়। তার কারণ হল, এসকল নিঅমাতের আধিক্য, অব্যাহততা, সহজলভ্যতা এবং মহান আল্লাহ কর্তৃক বান্দার প্রতি অনুগ্রহের নিরবচ্ছিন্নতা এবং সে বিষয়ে মানুষের উপলব্ধির তারতম্য। আর মহান আল্লাহ যথার্থই বলেছেন

وإن تعدوا نعمت الله لاخوها إن الإنسان لو گازه

তােমরা আল্লাহর অনুগ্রহ গণনা করলে তার সংখ্যা নির্ণয় করতে পারবে না। মানুষ অবশ্যই অতিমাত্রায় যালিম, অকৃতজ্ঞ। (সূরা ইবরাহীম : ৩৪)

নিঅমাতের প্রকারভেদ

আল্লাহ প্রদত্ত নি’মাত (প্রধানত) দু’ভাগে বিভক্ত। (১) মূল, (২) শাখাগত। শাখা নিঅমাতের দৃষ্টান্ত হল- জ্ঞান, দেহকাঠামাে এবং অর্থসম্পদে ব্যাপ্তি ও সমৃদ্ধি। আর সুন্নত ও নফল ইবাদতসমূহের পাবন্দি। যেমন তাহাজ্জুদ, তিলাওয়াত, যিকির। আর দেহের বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গে ফিতরাতের সুন্নত এবং বিভিন্ন আমলী সুন্নত, যেমন পুরুষদের জন্য সুগন্ধি ব্যবহার, সাক্ষাতকালে মুসাফাহা-করমর্দন, ডানপায়ে মসজিদে প্রবেশ করা, বামপায়ে বের হওয়া, চলার পথ থেকে কষ্টদায়ক বস্তু অপসারণ এবং এ জাতীয় বিভিন্ন সুন্নত, মুসতাহাব ও কতক ওয়াজিব বিষয়ের পাবন্দি। কেননা এসবই হল নিঅমাতের শাখা-প্রশাখা। আর নিঃসন্দেহে সেগুলি গুরুত্বপূর্ণ শাখা-প্রশাখা।