মাদ্রাসা শিক্ষার ভবিষ্যৎ-Pdf আকারে ইসলামিক বই || Aazeen Of Islam

মাদ্রাসা শিক্ষার ভবিষ্যৎ-Pdf আকারে ইসলামিক বই || Aazeen Of Islam

মাদ্রাসা শিক্ষার ভবিষ্যৎ-Pdf আকারে ইসলামিক বই || Aazeen Of Islam

Welcome to Aazeen Of Islam

Aazeen Of  Islam.com   শুদ্ধ ইসলামী জ্ঞানের নানা উপকরণের একটি সমৃদ্ধ ভাণ্ডার এতে আপনারা অনেক শীঘ্রই পেয়ে যাবেন শত শত প্রবন্ধ, বই, ইসলামি অডিও/ ভিডিও লেকচার কোরআন তিলাওয়াত,

আরও অনেক কিছু যার জন্য আমরা প্রতিনিয়তই আপডেটের কাজ চালিয়ে যাচ্ছি।

আমাদের মূল উদ্দেশ্যঃ

১। দ্বীন প্রচার,

২।কম সচেতন মুসলিমদের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টি করা,

৩।আমুসলিম ও নাস্তিকদের মাঝে ইসলামের সঠিক চিত্র তুলে ধরা,

৪।সকলের ভ্রান্ত ধারণার অবসান ঘটানো

আমাদের সাইটের APP

(NOW AVAILABLE ONLY FOR ANDROID )

https://drive.google.com/file/d/1Yh5xFhQ8-dLvWT5bprPtixdjDsACsinC/view?usp=sharing

“BOOK REVIEW”

২.৪৫ মেগাবাইট

লেখক

 মুহাম্মদ ঈসা শাহেদী


 বায়তুশ শরফ আঞ্জুমনে ইত্তেহাদ

মাদ্রাসা শিক্ষা এদেশে ইসলামের বাহন ও পরিচর্যাকারী। 

এ কারণেই এই শিক্ষা নিয়ে আমাদের এত মাথাব্যথা ও লেখালেখি । আমাদের সুচিন্তিত মত হচ্ছে, আলিয়া নেসাবের মাদ্রাসা শিক্ষা দাখিল ও আলিম স্তরে বর্তমানে যে অবস্থায় আছে তাতে সংস্কারের প্রয়ােজন নেই। 

ফাযিল ও কামিল স্তরে এর উন্নয়ন করাই কাম্য। 

জাতীয় শিক্ষানীতি প্রণয়ন কমিটি মাদ্রাসার প্রকৃত অবস্থা পর্যালােচনা করেছে বলে আমাদের মনে হয় না। 

একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণীর নৈর্বাচনিক সিলেবাসে ২০০ নম্বর বালাগাত ও মানতিক এর জন্য বরাদ্দ করার ভুলটি এর প্রমাণ দেয় । 

মাদ্রাসা শিক্ষার অস্তিত্ব রক্ষা ও উন্নয়নের অনিবার্য শর্ত হিসেবে ফাযিল ও অনার্স কোর্স চালুর দাবি জানিয়ে আমার একটি নিবন্ধ প্রকাশ হয়েছিল ‘ড. কুদরত-ই- খুদা শিক্ষা কমিশনের রিপাের্ট ও মাদ্রাসা শিক্ষার ভবিষ্যত’ শিরােনামে দৈনিক ইনকিলাবে ৩রা জুলাই ২০০৯। 

DOWNLOAD LINK GIVEN BELOW

মাদ্রাসা শিক্ষার ভবিষ্যৎDownload

বলেছিলাম, ফাযিলে অনার্স চালু না হলে মাদ্রাসা |

 শিক্ষার অস্তিত্ব থাকবে না। ছাত্ররা আলিমের পর অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ে চলে যাবে । ফাযিলে পাস কোর্স পড়ার জন্য মাদ্রাসায় পড়ে থাকবে না। 

সৌভাগ্যবশতঃ আগস্ট ২০০৯ এর প্রথম সপ্তাহে কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ফাযিলে অনার্স কোর্স চালুর জন্য প্রাতিষ্ঠানিক সিদ্ধান্ত ঘােষণা করেছে বলে পত্রিকায় নিউজ দেখেছি। 

প্রত্যাশা ছিল, জাতীয় শিক্ষানীতি ২০০৯ প্রণয়ন কমিটি এই ব্যবস্থাকে। স্বাগত জানাবে, অথচ জানায় নি।

 কমিটি যেসব কলেজে তিন বছরের ডিগ্রি কোর্স চালু আছে সেখানেও ৪ বছরের অনার্স কোর্স চালু করার প্রস্তাব করেছে। 

অথচ মাদ্রাসার বেলায় সে ব্যবস্থার কথা উল্লেখ পর্যন্ত করে নি। 

এ অবস্থায় মাদ্রাসার বেলায় জাতীয় শিক্ষানীতি প্রণয়ন কমিটির সুপারিশসমূহ কোন ক্রমেই সমর্থনযােগ্য নয়। 

কারণ, তাতে মাদ্রাসা শিক্ষার অনিবার্য বিলুপ্তি ঘটবে। 

প্রস্তাবিত শিক্ষানীতিতে কওমী মাদ্রাসাগুলােতেও ৮ম শ্রেণী পর্যন্ত একই ধরণের প্রাথমিক শিক্ষা চালু করা হবে বলে একাধিকবার বলা হয়েছে। এর পরিণতিও যে একই হবে তা বলাই বাহুল্য।