জাল হাদিসের কবলে রাসূলুল্লাহ (সাঃ)এর সলাত-Pdf আকারে ইসলামিক বই || Aazeen Of Islam

জাল হাদীছের কবলে রাসূলুল্লাহ (ছাঃ)-এর সলাত-Pdf আকারে ইসলামিক বই || Aazeen Of Islam

জাল হাদীছের কবলে রাসূলুল্লাহ (ছাঃ)-এর সলাত-Pdf আকারে ইসলামিক বই || Aazeen Of Islam

writer

মুযাফফর বিন মুহসিন

Welcome to Aazeen Of Islam

Aazeen Of  Islam.com   শুদ্ধ ইসলামী জ্ঞানের নানা উপকরণের একটি সমৃদ্ধ ভাণ্ডার এতে আপনারা অনেক শীঘ্রই পেয়ে যাবেন শত শত প্রবন্ধ, বই, ইসলামি অডিও/ ভিডিও লেকচার কোরআন তিলাওয়াত,

আরও অনেক কিছু যার জন্য আমরা প্রতিনিয়তই আপডেটের কাজ চালিয়ে যাচ্ছি।

আমাদের মূল উদ্দেশ্যঃ

১। দ্বীন প্রচার,

২।কম সচেতন মুসলিমদের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টি করা,

৩।আমুসলিম ও নাস্তিকদের মাঝে ইসলামের সঠিক চিত্র তুলে ধরা,

৪।সকলের ভ্রান্ত ধারণার অবসান ঘটানো

আমাদের সাইটের APP

(NOW AVAILABLE ONLY FOR ANDROID )

https://drive.google.com/file/d/1Yh5xFhQ8-dLvWT5bprPtixdjDsACsinC/view?usp=sharing

“BOOK REVIEW”

“২ মেগাবাইট “

আছ-ছিরাত প্রকাশনী

দুআ চাওয়া এবং সালামের পর সম্মিলিত মুনাজাত করা 

জুম’আর দিন দু’আ চাওয়া একটি প্রথায় পরিণত হয়েছে। 

অনেক মসজিদে ফরয ছালাত কিংবা জুম’আর ছালাতের পর কেউ কেউ পিতা-মাতা বা নিজের রােগমুক্তির জন্য সবার কাছে দুআ চায়। 

অনেকে ইমামের নিকট পত্র লিখে দুআ চায়। 

DOWNLOAD LINK GIVEN BELOW

জাল হাদীছের কবলে রাসূলুল্লাহ (সাঃ)-এর সলাতDownload

অথচ দু’আ চাওয়ার এই নিয়মটি সুন্নাত সম্মত নয়। 

মূলতঃ ছালাতের পরে প্রচলিত মুনাজাত চালু থাকার কারণেই দু’আ চাওয়ার এই পদ্ধতি ও চালু আছে। 

অনেক মসজিদে অন্যান্য ছালাতের পরে বিদআতী।

 মুনাজাত হয় না কিন্তু জুম’আর দিনে হয়। 

কারণ ধনাঢ্য ব্যক্তিবর্গ সেদিন। ছালাতে হাযির হয় এবং মসজিদে কিছু দান করে দুআ চায়। 

রাসূল (ছাঃ) ও ছাহাবীদের থেকে উক্ত পদ্ধতিতে দুআ চাওয়ার কোন প্রমাণ পাওয়া যায় না। 

দুআ চাওয়ার নিয়ম হল- কোন সমস্যায় পড়লে বা রােগাক্রান্ত হলে এলাকার। জীবিত পরহেযগার, দ্বীনদার, হকপন্থী আলেমের কাছে গিয়ে দুআর জন্য আবেদন করা। 

তখন তিনি প্রয়ােজনে ওযু করে কিবলামুখী হয়ে হাত তুলে তার জন্য আল্লাহর কাছে দুআ করবেন। 

ছাহাবায়ে কেরাম উক্ত পদ্ধতিতে দু’আ চাইতেন।

 আউসের যুদ্ধে আবু আমেরকে তীর লাগলে তিনি স্বীয় ভাতিজা আবু মূসার মাধ্যমে বলে পাঠান যে, তুমি আমার পক্ষ থেকে রাসূল (ছাঃ)-কে সালাম পৌছে দিবে এবং আমার জন্য ক্ষমা চাইতে বলবে।

 অতঃপর তাঁর কাছে বলা হল। আবু মূসা আশআরী (রাঃ) বলেন,