কুরআন-হাদীসের পঁয়ত্রিশটি ভবিষ্যদ্বাণী ।। Aazeen Of Islam

খন্দকার শাহরিয়ার সুলতান

প্রকাশক: আকাবা প্রকাশনী

৭৪৪ মনিপুর, মীরপুর-২, ঢাকা-১২১৬ মােবাইল : ০১৭২-৫৯৭৯৫৫

বইয়ের কিছু অংশ

 ভবিষ্যদ্বাণী – এক ফেরাউনের মৃতদেহ সংরক্ষিত থাকবে


আল কুরআনের সুরা ইউনুসের ৯০-৯২ নং আয়াতে আল্লাহ তায়ালা বলেন, “আমি বনি ইসরাইলদিগকে সমুদ্র পার করলাম এবং ফেরাউন ও তার সৈন্যবাহিনী যারা বিদ্বেষ পরবশ হয়ে সীমা লংঘন করেছিল তাদের পশ্চাদ্ধাবন করে। পরিশেষে যখন সে নিমজ্জিত হল তখন বললাে, আমি ঈমান আনলাম, কোন ইলাহ নেই সেই আল্লাহ ছাড়া যে আল্লাহর উপর বনি ইসরাঈলগণ বিশ্বাসী এবং আমি মুসলিমদের অন্ত ভুক্ত। (আল্লাহ উত্তর দিলেন) এখন! পূর্বে তাে তুমি ফাসাদ সৃষ্টিকারীদের অন্তর্ভুক্ত ছিলে; আজ আমরা কেবল তােমার (মৃত) দেহকে রক্ষা করব যাতে তুমি তােমার পরবর্তীদের জন্য নিদর্শন হতে পার।”

এটি আল কুরআনে বর্ণিত একটি বিখ্যাত ভবিষ্যদ্বাণী এবং অত্যাশ্চর্য ঘটনা।

খ্রিস্টপূর্ব ১০০০ অব্দের কাছাকাছি সময়কাল। আজ থেকে প্রায় তিন হাজার বছর পূর্বে হযরত মূসা (আঃ)

এর সাথে যে ফারাও সম্রাট বা ফেরাউনের সংঘাত হয় তার নাম পবিত্র কুরআনে দেওয়া হয়নি। | পবিত্র কুরআনে ‘ফেরাউন’ নামটি অসংখ্যবার এসেছে। ফেরাউন’ কোন একজন ব্যক্তির নাম নয়। এটি একটি রাজবংশের (Dynasty) নাম। ফেরাউনরা ছিল তৎকালীন মিশরের দৌর্দণ্ড প্রতাপশালী শাসকগােষ্ঠী। এরা মিশরীয় সভ্যতা বিনির্মাণে অনেক অবদান রাখে।