ঈমানের প্রয়ােজনীয়তা

 ঈমানের প্রয়ােজনীয়তা

 

 

 

আল্লাহ তায়ালা পবিত্র কোরআন মজীদে ঘােষণা করেন

من عمل صالحا من ذكر أو أنثى وهو مؤمن فاولن يدخلون الجنة .

অর্থাৎ:-

“যে পুরুষ কিংবা নারী সৎকাজ করে, যদি সে ঈমানদার হয়, তবে সে বেহেশতে প্রবেশ করবে।”

‘এ সম্পর্কে আল্লাহ তা’য়ালা অন্যত্র বলেন’

ومن يكفر بالايمان فقد حبط عمله في الاخرة من الخسرين .

অর্থাৎ:-

“আর যে ব্যক্তি ঈমান প্রত্যাখান করবে তাহলে তার সমস্ত আমল অবশ্যই বিফলে যাবে এবং সে পরকালে ক্ষতিগ্রস্তদের অন্তর্ভুক্ত হবে।” (সূরা মায়িদা, আয়াত : ৫)।

হযরত রাসূল (সঃ) বলেন,

والذي نفسي بيده لا تدخلون الجنة حتى تؤمنوا۔

অর্থাৎ,

“যার (কুদরতি) হস্তে আমার জীবন, সে পাকজাতের কসম, তােমরা যতক্ষণ পর্যন্ত না ঈমানদার হবে, ততক্ষণ বেহেশত লাভ করতে পারবে না।” (মুসলিম শরীফ)

অপর এক হাদীসে আছে,

لا يدخل الجنه گافر ولا يدخل التار المؤمن –

অর্থাৎ,

“কোন কাফের ব্যক্তি বেহেশতে প্রবেশ করবে না, পক্ষান্তরে কোন মু’মিন ব্যক্তি দোযখে প্রবেশ করবে না।”

।কোরআন ও হাদীসের উপরােক্ত উদ্ধৃতি হতে এটাই প্রমাণিত হয় যে, আল্লাহর দরবারে বান্দাদের নেক আমল বা পুণ্যের কাজ গ্রহণ যােগ্য হওয়ার জন্য অপরিহার্য শর্ত হচ্ছে ঈমান । যার ঈমান নেই তার সমুদয় কাজ মৃত্যুর পর অসার ও ব্যর্থ প্রতিপন্ন হবে।

Aazeen Of Islam