আরব জাতি, ইসলামের পূর্বে ও পরে Pdf- Islamic Pdf Book Store

Welcome to Aazeen Of Islam


আমাদের ফেসবুক পেইজ: https://www.facebook.com/AazeenOfIslam/


আমাদের ইউটিউব চ্যানেল : https://www.youtube.com/c/AazeenOfIslam

Aazeen Of Islam.com শুদ্ধ ইসলামী জ্ঞানের নানা উপকরণের একটি সমৃদ্ধ ভাণ্ডার
এখানে আপনারা আপাদত পাচ্ছেন ২০০+ ইসলামিক বই এবং পার‍্য প্রতিদিন ই নতুন নতুন বই আপলোড দেয়া হচ্ছে আমাদের সাইট টিতে
এছাড়াও আপনারা আ,আমাদের সাইটিতে পাচ্ছেন ইসলামি অডিও/ ভিডিও লেকচার এবং বিভিন্ন ক্বারীর কোরআন তিলাওয়াত,
আরও যুক্ত হতে যাচ্ছে অনেক কিছু যার জন্য আমরা প্রতিনিয়তই আপডেটের কাজ চালিয়ে যাচ্ছি।
আমাদের মূল উদ্দেশ্যঃ
১। দ্বীন প্রচার,
২।কম সচেতন মুসলিমদের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টি করা,
৩।আমুসলিম ও নাস্তিকদের মাঝে ইসলামের সঠিক চিত্র তুলে ধরা,
৪।সকলের ভ্রান্ত ধারণার অবসান ঘটানো


“Disclaimer”
১। আমাদের উদ্দেশ্য মোটেও ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়ানো নয়
২। আমাদের বই গুলো আমরা কখনো নিজে Pdf করে থাকি না করলেও অনুমোদন নিয়েই করা হয়ে থাকে
৩।বইগুলো যেহেতু আমাদের কালেক্টেড তাই প্রাকশণীর আমাদের উপর কোন অভিযোগ গ্ণ্য হবে না সেক্ষেত্রে যে Pdf টি করেছে তার কাছে আপনি ক্লেইম করতে পারেন।

আমাদের সাইটের APP
(NOW AVAILABLE ONLY FOR ANDROID )


https://drive.google.com/file/d/1Yh5xFhQ8-dLvWT5bprPtixdjDsACsinC/view?usp=sharing

“BOOK REVIEW”
১.১৫মেগাবাইট
পেইজ সংখ্যা
১৪
লেখক
সায়্যেদ আবুল হাসান আলী নদভী

ডাউনলোড লিকংটি নিচে দেয়া হলো

ইসলামের পূর্বে আরবদের অবস্থা কেমন ছিল এবং ইসলামের পরে কেমন হল???

ইসলামের পূর্বে আরবদের আকীদা-বিশ্বাস ও মানসিক চিন্তাধারা আরবদের মধ্যে আল-আরব আল আদনানিয়া নামে প্রসিদ্ধ জনগােষ্ঠি যাদের বংশ পরিক্রমা ইসমাইল হতে আরম্ভ হয়েছিল, তারাই প্রকৃত পক্ষে ইসলামের আগমনের পূর্বে সঠিক দ্বীনের অনুসারী ও তাওহীদে বিশ্বাসী ছিল।

 তারা এক আল্লাহর ইবাদত করত এবং দ্বীনে ইবরাহীমের অনুসরণ করত। ইসমাইলী বংশধরদের প্রচেষ্টা ও তাদের একনিষ্ঠ দাওয়াতের কারণেই সমগ্র আরব ভূখন্ডের আনাচে-কানাচে সঠিক দ্বীন তথা তাওহীদের ব্যাপক প্রচার-প্রসার ঘটেছিল।

আরব-জাতি-ইসলামের-পূর্বে-ও-পরে-pdfDownload

 

দীর্ঘ এক যুগ অতিবাহিত হওয়া পর্যন্ত আরবরা কোন প্রকার শিরক ও কুসংস্কারে লিপ্ত হয়নি। তারা এক আল্লাহর ইবাদত করত, তাদের মধ্যে কোন শিরক তখন পর্যন্ত স্থান পায়নি। তবে নবুওয়তের যুগ থেকে তাদের সময় অনেক দীর্ঘ হয়ে যাওয়া এবং কোন প্রকার দাওয়াত বা সঠিক দ্বীনের আহ্বানকারী না থাকা তাদের মধ্যে শিরকের অনুপ্রবেশের একটি রাস্তা তৈরি করে নিল। এরই সূত্র ধরে তাদের থেকেই আমর ইবনে লুহাই নামে এক লােকের আর্বিভাব হল, যে এ সুযােগটিকে কাজে লাগালাে।

 লােকটি তাদের মাঝে খুব সম্মান ও মর্যার্দার অধিকারী ছিল। কোন কারণে লােকটি সিরিয়ায় গেলে, সেখানে দেখতে পেল, এখানকার লােকেরা মূর্তির পূজা করছে। তার নিকট তাদের মূর্তি পূজা করাটা খুব পছন্দ হয়। সে ভাবলাে যেহেতু শিরিয়া, আসমানী কিতাব ও আসমানী ধর্মসমূহের আবাসভুমি সুতরাং এখানে যে দ্বীন চলবে তাই হবে সত্য দ্বীন এবং এখানকার লােকেরাই হবে সত্যের উপর প্রতিষ্ঠিত জনগােষ্ঠী। 

তাদের বাইরে যারা থাকবে তারা হবে এই, পথহারা ও বিপথগামী। তারপর সে সিরিয়া থেকে তার সাথে ‘হুবল’ নামক একটি দেবতা মক্কায় নিয়ে আসল। মক্কায় এনে দেবতাটিকে কাবা ঘরের মাঝে স্থাপন করল এবং মক্কার লােকদেরকে দেবতাটির ইবাদাতের জন্য আহবান করল। তারা তার ডাকে সাড়া দিল। আর এভাবেই মক্কাবাসীরা দেবতার ইবাদাত করতে আরম্ভ করল। মক্কাবাসীদের দেখে দেখে হিজাযের আরবরাও তাদের অনুকরণ করল । কারণ তারা ছিল বাইতুল্লাহর অভিভাবক এবং হেরমের অধিবাসী। সুতরাং তারা যা করবে আশপাশের লােকেরা তারই অনুকরণ করবে, এটা ছিল একেবারেই স্বাভাবিক। 

এভাবে কিছুদিন চলতে চলতে সমগ্র আরবে দেবতার……